Home Alipurduar দশমীমেলা কি হবে,সন্দেহ জটেশ্বর বাসীর মনে

দশমীমেলা কি হবে,সন্দেহ জটেশ্বর বাসীর মনে

470
0

আলিপুরদুয়ার ০৯/০৯/২০১৭:-দুর্গাপুজা শুরু হতে মাত্র কয়েকটা  দিন।পুজোর কেনাকাটায় ব্যাস্ত বাঙালিরা।কাপড়ের দোকানে ভিড় উপচে পড়ছে।কিন্তু একটা প্রশ্ন সবার মনে ঘুরপাক খাচ্ছে ,এবার দশমীমেলা কি হবে জটেশ্বর এ।গ্রাম হিসাবে ছোট হলেও আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটা ব্লকে বিশেষ নাম আছে দুর্গাপুজা হিসাবে।।

এটাই এখন সবার ভাববার বিষয়।জটেশ্বর এ দুর্গাপুজা বেশ ধূমধাম করে হয়।ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় জটেশ্বরে ২০ টির মতো পূজা হয়।সেই ঠাকুরগুলো বিসর্জন দেবার আগে জটেশ্বরের ঐতিহ্যবাহী গরুহাটি ময়দানে মেলার আয়োজন করা হয়,এবং হাজার হাজার মানুষের সমাবেশ ঘটে, জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে।কিন্তু এবছর বেশি বৃষ্টিপাতের ফলে গরুহাটি মাঠটির করুন অবস্থা।অতি বৃষ্টির ফলে মাঠে জল দাঁড়িয়ে গেছে,নিকাশি ব্যাবস্থা না থাকার ফলে জল বের হবার রাস্তা নেই,ফলে দিনের পর দিন এভাবেই জলের তলায় মাঠটি।তা উপর গোদের উপর বিষফোঁড়া প্রায় প্রতিদিন হয়ে চলা বৃষ্টি।ফলে মাঠের অবস্থা আগের চেয়েও করুন অবস্থা।জল কাঁদায় পরিপূর্ণ।সংস্কারের অভাবে ধুঁকছে।

প্রতিবছর এই মাঠে মেলা বসে শিবরাত্রি উপলক্ষে,২ টি ক্লাবের বাৎসরিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।সেসময় কিছুটা মাঠ পরিষ্কার বা পরিচর্যা করা হয়,বাকিদিন গুলো এভাবেই পরে থাকে।সপ্তাহের শনিবার করে গরুর হাট বসে,ওইদিন করে আরো করে মাঠের অবস্থার শোচনীয় পরিণীতি ঘটে।কিন্তু আসন্ন দুর্গাপুজা উপলক্ষে দশমীমেলা কি এবছর হবে তা নিয়ে সন্ধিহান মেলা কমিটি ও পুজো উদ্যোক্তারা।এ বছর যে পরিমান বৃষ্টি হচ্ছে তার জন্য মাঠ শুকানোর সময় পাচ্ছে না।

যে টুকু রোদে শুকছে পুনরায় বৃষ্টিতে আবার একই পরিস্থিতির শিকার হচ্ছে।এই মেলার ওপর অনেক লোক নির্ভরশীল।একদিনের এই মেলায় প্রচুর মানুষের সমাগম হবার জন্য বেচাকেনা খুব ভালো হয়,তাই মেলা না হলে ব্যাবসায়ীদের আর্থিক ক্ষতি হবেই,তার সাথে সাধারণ দর্শনার্থীরাও নিরাশ হয়ে পড়বেন।তাই এখন সবার মনে বিশেষ করে জটেশ্বরবাসীর মনে একটাই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে দশমীমেলা কি আদৌও হবে???