Home Cooch Behar ব্লাড ডোনার অর্গানাইজেশন এবং নিউটাউন ইউনিটের পক্ষ থেকে উওরবঙ্গ পিঠা পুলি প্রতিযোগিতায়

ব্লাড ডোনার অর্গানাইজেশন এবং নিউটাউন ইউনিটের পক্ষ থেকে উওরবঙ্গ পিঠা পুলি প্রতিযোগিতায়

117
0
pitha puli

কোচবিহার:- বাঙালির লোক ইতিহাস-ঐতিহ্যে পিঠা-পুলির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে বহুকাল ধরে। সাধারণতঃ পিঠা শীতকালের রসনা জাতীয় খাবার হিসেবে অত্যন্ত পরিচিত। মুখরোচক খাদ্য হিসেবে বাঙালি সমাজে বিশেষ আদরণীয়। এছাড়াও, আত্মীয়-স্বজন ও মানুষে-মানুষের পারস্পরিক সম্পর্কের বন্ধনকে আরো দৃঢ় ও মজবুত করে তুলতে পিঠা-পুলি আয়োজনের উৎসবে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু আজকাল পিতজা , প্যাটিস , বার্গার এর দৌলতে আমরা হাড়াতে বসেছি আমাদের সংস্কৃতি , আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির মেল বন্ধন কে। ব্লাড ডোনার অর্গানাইজেশন এবং নিউটাউন ইউনিটের পক্ষ থেকে এই শীতের আমেজকে বাড়াতে এক অভিনব উদ্যোগ “উত্তরবঙ্গ পিঠে পুলি উৎসব” (প্রথম বর্ষ) । এই প্রতিযোগিতা শুধুমাত্র মহিলা ও মেয়েদের অংশগ্রহন করেছিল। এক ধরনের পিঠা ১০ পিস সুসজ্জিত ভাবে এনেছিল ট্রে তে সাজিয়ে উওরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে মহিলারা ও মেয়েরা। ১৩ই জানুয়ারী দুপুর ১২ থেকে, নিউ টাউন ইউনিটের কক্ষ্যে এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হল।এই অনুষ্ঠানের বিচারক ছিলেন কোচবিহার প্রেস ক্লাবের সম্পাদক সুমন কল্যান ভদ্র,কোচবিহার মিষ্টান্নব্যাবসার সম্পাদক সঞ্জিব বনিক, দিনহাটা কলেজের পূবর্তন অধ্যক্ষ্ আসিস সরকার, কোচবিহার ডিস্ট্রিক ইন্ডাটিয়াল অ্যাসসোয়িয়েশনের সম্পাদক দিলিপ বনিক, বিশিষ্ট চিত্র শিল্পি শ্রী হরি দও । বিচারকের সিদ্ধান্তে প্রথম হয়েছে কোচবিহারের গৃহবধু সিমি বৈদ্য, আলিপুরদুয়ারের গৃহবধু সানি সরকার, কোচবিহারের গৃহবধু তৃতীয় ঝুমা গুপ্ত। মোট ২৪ জন অংশগ্রহন করেছে। পিঠা ছিল সুজির চিতে পিঠা, গোলাপ পিঠা, নারকেল বর্ফি, ভাঁপা পিঠা, গাজরের রসবরা, মুগুের পুলি, খিরের চন্দ্রপূলি, মাসকালাই রসবরা, পাটি সাপ্তা, ও সাদা পিঠা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here