Home India #READ #WATCH শুকর অভিযানে নেমে বিক্ষোভের মুখে পরল জলপাইগুড়ি পৌরসভা ও পুলিশ।

#READ #WATCH শুকর অভিযানে নেমে বিক্ষোভের মুখে পরল জলপাইগুড়ি পৌরসভা ও পুলিশ।

103
0

জলপাইগুড়ি ঃ- শুকর অভিযানে নেমে বিক্ষোভের মুখে পরল জলপাইগুড়ি পৌরসভা ও পুলিশ। বুধবার শহরের হরিচরন বস্তি, আশ্রম পাড়া, ১ নং ঘুমটি সহ বেশ এলাকায় শুকর অভিযানে নামে পুর কমীরা। সাথে জলপাইগুড়ি কোতয়ালী থানায় পুলিশ কমীরা ছিলেন। শুকর ব্যবিসায়ীদের উদ্দ্যেশ্যে পৌরসভার মাইকিং করে বেশ কিছু আগেই জানিয়ে দিয়েছিল শহরের শুকর পালন করা যাবে না। এরপরেও এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ী পৌর আইনকে বুরো আঙ্গুল দেখিয়ে রমরমিয়ে শুকরের ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। যায় জেরে শহর বাসি নাজেহাল অবস্থায় সৃষ্টি হয়। এদিকে শুকর থেকে বিভিন্ন ভাইরাস ছরিয়ে পরছে শহর জুড়ে। শুকর বিভিন্ন রোগের ভাইরাস বহন করে যায় জেরে শহর বাসীর মধ্যে বিভিন্ন রোগের সংক্রমন দেখা যাচ্ছিল। শুকর মুক্ত শহর তৈরি করতে পৌরসভা অভিযান চালাতে গেলে পৌরকমীদের উপর আক্রমন চালায় শুকর ব্যবসায়ীরা। হরিচরন বস্তি এলাকায় শুকর অভিযান করতে গেলে পৌরসভার একটি গাড়িতেও ভাংচুর চালায় শুকর ব্যবসায়ীদের একাংশ। এরপর পুলিশ ও শুকর ব্যবসায়ীদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। স্থানিয় মহিলারা পুলিশের উপর আক্রমন করে বলে অভিযোগ। মহিলা পুলিশ না থাকায় পুলিশকে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে বেগ পেতে হয়। পরে অবশ্য পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। অভিযোগ, শুকরের খাটাল তৈরি করে রেখেছে হরিচরন বস্তি এলাকায়। খাটাল গুলি থেকে প্রচুর শুকর এদিন বাজেয়াপ্ত করেন পুর কমীরা। জাল দিয়ে চারিদিক আটকে শুকর অভিযান চলে। এই ধরনের অভিযান লাগাতার চলবে বলে জানায় পুর কমীরা।
স্থানিয় বাসিন্দা কল্পনা রায় জানান, শুকরের অত্যাচারে আমাদের নাজেহাল পরিস্থিতি। স্থানিয় কাউন্সিলারকে আমরা অভিযোগ করেছিলাম। আজকে পৌরসভা শুকর অভিযান চালিয়েছে আমরা খুব খুসি। পুজোর আগেই কিছুটা শান্তি পাব শুকরের অত্যাচার থেকে।
পৌরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিলিং সৈকত চ্যাটাজি জানান, আমরা এদিন শুকর অভিযানে নামলে আমাদের উপর আক্রমন করে এলাকায় বাসিন্দারা। শুধু তাই নয় প্রানে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় শুকরের ব্যবসার সাথে যুক্ত যারা। পুলিশ সুপারের কাছে বিষয়টি জানিয়ে মহিলা পুলিশ ও বারতি পুলিশ দিয়ে এরপর শুকর অভিযান চালানো হবে। যত বাধা দিবে আমরা তত এই শুকর অভিযান চালিয়ে যাব, যত দিন না শুকর মুক্ত শহর হচ্ছে তত দিন এই অভিযান চলবে। জলপাইগুড়ি শহরকে শুকর মুক্ত শহর গরে তুলতেই হবে।
পুলিশ কমী জানান, আমাদের উপর আক্রমন করে বেশ কিছু স্থানিয় মহিলা। আমরা ও পৌর কমীরা কিছু বুঝে উঠার আগেই আক্রমন চালায়। উত্তেজনার সৃষ্টি হলেও পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে।