Home Malda জমির দখলদারি নিয়ে ব্যবসায়ীকে মারধর মালদায়

জমির দখলদারি নিয়ে ব্যবসায়ীকে মারধর মালদায়

82
0
file pic

মালদা, ১৫ ফেব্রুয়ারী : জমির দখলদারি নিয়ে এক ব্যবসায়ীকে মারধর করলো দুস্কৃতীরা। এমনকি ওই ব্যবসায়ীর বাড়ি ভাংচুর, লুটপাঠ চালায়  দুস্কৃতীরা। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে কালিয়াচক থানার সিলামপুর এলাকার চুরিমোড় এলাকায়। আক্রান্ত ব্যবসায়ীর নাম রফিক মোমিন (৪৬)। অভিযোগ, প্রায় ১৫০ জন দুষ্কৃতী গভীর রাতে অবাধে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে। আহত হন ওই ব্যবসায়ীর পরিবারের তিন সদস্য। তাঁদের মধ্যে দু’জন মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রফিক মোমিন পেশায় জমি ব্যবসায়ী। চুড়িমোড়ে তাঁর বাড়ি। তাঁর দুই ছেলে সাফিকুল ইসলাম ও আজগর আলি ইটভাটার চিমনি সরবরাহের ব্যবসা করেন। ৭-৮ মাস আগে রফিক ওই থানার আলিনগর এলাকায় প্রায় ৫ বিঘা জমি কেনেন। সেই জমির কিছু অংশ তিনি এর মধ্যেই বিক্রি করে দিয়েছেন। তবে তার রেজিস্ট্রি এখনও হয়নি। ওই জমিকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতীদের সঙ্গে বিরোধ শুরু হয় তাঁর।আক্রান্ত্র ব্যবসায়ী রফিক জানান,  এদিন রাতে এলাকার এক দুষ্কৃতী আজিম শেখ সহ ৬ জন তাঁদের বাড়িতে এসে  তাঁকে বেরিয়ে আসতে বলে। তিনি ঘর থেকে বেরিয়ে এলে তারা তাঁকে বলে, তাদের ১০ কাঠা জমি আলিনগরে রয়েছে। সেই জমি তাঁকে কিনতে হবে। কিন্তু, ওই জমি কিনে তাঁর কোনও লাভ হবে না। তাই তিনি ওই জমি কিনতে অস্বীকার করেন। তখনই তাঁকে মারতে শুরু করে দুষ্কৃতীরা।দুস্কৃতীরা সঙ্গে ছিল প্রায় ১৫০ জন। তারা বাড়ি লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়তে শুরু করে। কয়েকজন বাড়ির ভিতরে ঢুকে যায়। বাড়িতে থাকা ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা ও প্রায় ৭ ভরি সোনার গয়না লুট করে নিয়ে যায় তারা। বাধা দিতে গিয়ে তাদের হাতে বেধড়ক মার খান তাঁর ভাই আকবর আলি, বোন মানোয়ারা খাতুন ও মেয়ে সঞ্জিনা খাতুন।  তাঁরা কোনওরকমে তাদের বের করে বাড়ির মূল দরজার সাটার লাগিয়ে দেন। খবর দেন কালিয়াচক থানায়। পুলিশ আসার আগেই সেখান থেকে চলে যায় আজিমরা। কালিয়াচক থানার পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকর্মীরা চুড়িমোড় এলাকায় যান। কিন্তু, আজ সকাল পর্যন্ত এনিয়ে কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। অভিযোগ দায়ের হলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।